আমাদের উদ্দেশ্য গুলো হলো

হেলথ কেয়ার

যে কোন সুস্থ ও বিকাশশীল সমাজ তৈরীর প্রাথমিক কারিগর সেই সমাজের মেয়েরা। তাই মেয়েদের সুস্থ থাকা এবং সুস্থ রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আগামী ভবিষ্যৎ-এর কারণে। একটি মেয়ের জন্মের শুরু থেকেই তার ভেতরে তার ভবিষ্যৎ মাতৃসত্ত্বা লুকিয়ে থাকে। প্রতিদিনের বেড়ে ওঠার মাঝে সেই মাতৃসত্ত্বা ধীরে ধীরে পুষ্ট হতে থাকে। যে শরীরে প্রাণের সৃষ্টি হয় সেই শরীরের আন্তঃ কর্ম পদ্ধতি যে খুবই বিশেষ এবং বাকীদের থেকে আলাদা সে বিষয়ে আমাদের কারোরই সন্দেহ থাকা উচিৎ নয়।


তথ্য সরবরাহ
আমরা তথ্য কোন চিকিৎসক বা কোন উত্তম মাধ্যম দিয়ে সরবরাহ করি, কিন্তু কিছু সমস্যার কোন একক সমাধান কারও জন্য কাম্য নয়। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে আমাদের কমেন্ট করে জানান আপনার অসুবিধা গুলো।


সামগ্রীক আলোচনা
মহিলা স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রসঙ্গ উঠলে সাধারনত কেবল প্রজনন সম্পর্কিত স্বাস্থ্য-এর কথা ধারণা করা হয়, যা নিয়ে যথেষ্ট বিবাদ বিদ্যমান সমাজে। এই প্রসঙ্গে উল্লেখ করা যায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সংজ্ঞা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বলতে বোঝায় - এমন একটি অবস্থা যাতে শারীরিক, মানসিক এবং সামাজিক দিকে সম্পূর্ণ ভাবে ভালো থাকাকে বোঝায় এবং যা শুধুমাত্র রোগ-এর অনুপস্থিতি বোঝায় না। এই কারণে সমাজ সংস্কারকরা চাইছেন বর্তমানে সমাজের দৃষ্টি নারী প্রজনন স্বাস্থ্য-এর বদলে নারী স্বাস্থ্য-এর দিকে ফেরাতে।


ঘরে তৈরি রূপ সামগ্রী
আধুনিকায়নের ভেলায় ভাসতে ভাসতে আমরা এখন অনেকটাই প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে পড়েছি,সেই সাথে যান্ত্রিক হয়ে গেছে রূপচর্চাও। ব্যস্ততার দোহাই দিয়েই হোক কিংবা ভেষজ দ্রব্যের অপ্রাতুল্যতার জন্যেই হোক,আজকাল অনেকেই বেছে নিয়েছে এবং নিচ্ছে রাসায়নিক দ্রব্যাদি;এসব পণ্য আমাদের ত্বকের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর। তাছাড়া হারবাল পণ্যের নামে বাজারে বিক্রি হচ্ছে নানা রকম ভেজাল সামগ্রী।

Load comments